মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৩, ০৫:০৬ অপরাহ্ন

অনলাইন ডেস্ক:

বিয়ের আগে সবাই প্রস্তুতি নেয়। এটা একটা বড় ঝক্কি, এটি মোটেই ছোট বিষয় নয়। শপিং থেকে শুরু করে আত্মীয়-স্বজনদের খবর দেওয়া- নানা দিকেই খেয়াল রাখতে হয়। তবে এ সবের মাঝে নিজের জন্যও কিছুটা সময় বার করে নিন। আর বিয়ের আগে এড়িয়ে চলুন বেশ কয়েকটি বিষয়।

জেনে নিন বিয়ের আগে কী কী বিষয়গুলো এড়িয়ে চলা উচিত-

১. চোখের নীচে কালির প্রলেপ। ফোলা ফোলা চোখ। বিয়ের অ্যালবামে নিশ্চয়ই এমন ছবি দেখতে চাইবেন না। তাই বিয়ের কয়েকটা দিন অন্তত লেট নাইট পার্টিকে গুডবাই বলুন। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব, ঘুমিয়ে পড়ার চেষ্টা করুন।

২. শুধুমাত্র শপিংই নয়, বিয়ের আগে ডায়েটের দিকেও কড়া নজর রাখুন। খুব স্পাইসি বা অয়েলি ফুড এড়িয়ে চলুন। এ ধরনের খাবার খেলে অতিরিক্ত ঘাম বা মাথাধরার মতো সমস্যা হতে পারে। তাই বিয়ের আগে যতটা সম্ভব হাল্কা, কম তেলযুক্ত খাবার রাখুন নিজের ডায়েটে। সেই সঙ্গে ফ্রেশ দেখাতে প্রচুর পরিমাণ পানি পান করুন।

৩. বিয়ের আগের কয়েকটা দিন অন্তত নতুন কোনো স্কিনকেয়ার প্রোডাক্ট ব্যবহারের ঝুঁকি নেবেন না। নতুন কোনো ফেস ক্রিম বা মাস্কারা ব্যবহার করতে গিয়ে তার ফল উল্টো হতে পারে। তা আপনার স্কিন টাইপের পক্ষে স্যুটেবল না-ও হতে পারে।

৪. বন্ধুবান্ধবদের সঙ্গে জমায়েত হলেই অতিরিক্ত অ্যালকোহল বা ধূমপান করার দিকে ঝুঁকে পড়েন? বিয়ের আগের কয়েক দিন অন্তত এই অভ্যাস পাল্টে ফেলুন। অ্যালকোহল ইনটেক একটু কমান। কমিয়ে দিন ধূমপান করাও। সঙ্গে কমিয়ে দিন ঠান্ডা পানীয় খাওয়ার ঝোঁকও। দেখবেন, বিয়ের দিনে আপনার শরীর-মন কতটা ঝরঝরে থাকে!

৫. বিয়ের আগে যতটা পারবেন নিজে ড্রাইভিং করা এড়িয়ে চলুন। এই সময় এক রাশ চিন্তা-ভাবনা আসাটা স্বাভাবিক। ফলে নিশ্চিন্তে ড্রাইভিং করা সম্ভব না-ও হতে পারে। সে ক্ষেত্রে ড্রাইভারের হাতে নিজের গাড়ির স্টিয়ারিং ছেড়ে দিন।

৬. বিয়ের ঠিক আগেই নতুন কোনো হেয়ার স্টাইল বা ফেসিয়াল করাবেন না। একান্তই যদি হেয়ার স্টাইল পাল্টাতে চান তবে তা অন্তত দু’সপ্তাহ আগে করিয়ে নিন। এতে আপনার চুলে একটা ন্যাচারাল লুক আসবে। পাশাপাশি, ফেসিয়ালও সেরে ফেলুন মাস দুয়েক আগে। এতে বিয়ের দিনে অন্তত আপনার মুখের লাল লাল ভাবটা আর থাকবে না।

৭. বিয়ের আগে মেকআপ বা ডায়েটের খেয়াল রাখার পাশাপাশি নিজের দাঁতেরও যত্ন নিন। কফি, রেড ওয়াইন, ব্লুবেরি, অ্যাসিডিক ফুড, ব্ল্যাক টি বা টোব্যাকো প্রোডাক্ট থেকে দূরে থাকুন। এতে দাঁত ঝকঝকে সাদা থাকবে।

আরও পড়ুন

%d bloggers like this: