রবিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৩, ০৩:৫৪ পূর্বাহ্ন

অনলাইন ডেস্ক:
যুবক-যুবতীর প্রেম পৃথিবীতে নতুন কিছু নয়। যৌবনের সম্পর্কের টানাপোড়েন সহ্য করতে পারলেন না তরুণী। তাই প্রেমিকের সাবেক প্রেমিকার ধারালো অস্ত্রের এলোপাথাড়ি কোপে জীবন খোয়াতে বসেছেন বর্তমান প্রেমিকা।

গত বুধবার রাতে ভারতের উত্তর ২৪ পরগনার হাবড়া থানার বাণীপুর রবীন্দ্রসরণী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে৷ আহত ওই কিশোরীর মাথায় ও শরীরের একাধিক জায়গায় গুরুতর ক্ষত তৈরি হয়েছে৷ তাকে বর্তমানে হাবড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। ঘটনার পর তদন্তে নামে হাবরা থানার পুলিশ৷ অভিযুক্ত প্রেমিকাকে গ্রেফতার করা হয়৷ পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্তের নাম অঙ্কিতা কুণ্ডু৷

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বাণীপুর বাদামতলা এলাকার বাসিন্দা ক্ষিতিশ রায়৷ অশোকনগরের সুভাষপল্লির বাসিন্দা অঙ্কিতার সঙ্গে তাঁর প্রেমের সম্পর্ক তৈরি হয়েছিল৷ কিন্তু সম্প্রতি সেই সম্পর্ক ভেঙে যায়৷ এর পর ক্ষিতিশ রবীন্দ্রসরণির ওই কিশোরীর সঙ্গে নতুন করে প্রেম করতে শুরু করেন৷ মেয়েটি স্থানীয় একটি স্কুলের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী৷

ক্ষিতিশের সঙ্গে সম্পর্ক ভেঙে যাওয়া মেনে নিতে পারেনি অঙ্কিতা৷ তাই সে বারবার এই সম্পর্ক জুড়তে চাইছিল৷ এ নিয়ে ক্ষিতিশকে বারবার অনুরোধও করেছিল৷ কিন্তু ক্ষিতিশ তাতে কান না দিয়ে ওই কিশোরীর সঙ্গে নতুন সম্পর্ক এগিয়ে নিয়ে যেতে থাকেন৷

স্থানীয়দের দাবি, এই পরিস্থিতিতে অঙ্কিতার সব রাগ গিয়ে পড়ে ওই কিশোরীর উপর৷ বুধবার বিকেলে রাস্তায় ওই কিশোরীর উপর চড়াও হয় অঙ্কিতা৷ দু’জনের মধ্যে এ নিয়ে ব্যাপক বচসা হয়৷ তার পর দু’জনে সেখান থেকে চলেও যায়৷ তবে রাত ৮টা নাগাদ রবীন্দ্রসরণিতে ওই কিশোরীর বাড়িতে হাজির হয় অঙ্কিতা৷ তখন মেয়েটি বাড়িতে একাই ছিল৷ সেখানে প্রথমে দু’জনের মধ্যে বচসা শুরু হয়৷ তার পর ধারালো অস্ত্র দিয়ে ওই কিশোরীর উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে সে৷ ধারালো অস্ত্র গিয়ে এলোপাথাড়ি কোপানো হয় ওই কিশোরীকে৷

ওই কিশোরীর চিৎকারে ছুটে আসেন প্রতিবেশীরা৷ তাঁরাই অঙ্কিতাকে আটক করেন৷ ওই কিশোরীকে উদ্ধার করেন৷ নিয়ে যান হাসপাতালে৷ সেখানেই তাঁর চিকিৎসা হয়৷

আরও পড়ুন

%d bloggers like this: