মঙ্গলবার, ৩০ মে ২০২৩, ০৪:৫০ পূর্বাহ্ন

( জাগো কুমিল্লা.কম)
শেষ পর্যন্ত নেইমারের জাদু দেখল কোটি কোটি ফুটবলপ্রেমিরা। আর ভক্তদের হৃদয়ে স্থান করে নিলেন ব্রাজিলিয়ান তারকা নেইমার। রাশিয়া বিশ্বকাপে শুক্রবার ‘ই’গ্রুপে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে মুখোমুখি হয় ব্রাজিল ও কোস্টারিকা। প্রথমার্ধের খেলায় গোল শূন্য। দ্বিতীয়ার্ধ শেষ অতিরিক্ত সময়ে কুতিনহোর ও নেইমারের গোলে কোস্টারিকাকে ২-০ ব্যবধানে হারিয়েছে ব্রাজিল।

বার বার কোস্টারিকা বিরুদ্ধে আক্রমণ চালায় নেইমার বাহিনী। অনেক সুযোগ পেয়েও প্রথমার্ধে গোলের দেখা পায়নি ব্রাজিল। সময় শেষ দুরু দুরু বুক নিয়ে অতিরিক্ত সময়ে সমর যুদ্ধে জয় লাভ করল নেইমার। নেইমারের জাদুতে শেষ মিনিটে ২-০ ব্যবধানে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ব্রাজিল।

রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবার্গে বাংলাদেশ সময় শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টায় ব্রাজিল ও কোস্টারিকার মধ্যে ম্যাচটি শুরু হয়। ম্যাচের ৩ মিনিটে ভালো একটি সুযোগ পেয়েছিলেন ব্রাজিলের ফিলিপে কুতিনহো। কিন্তু বক্সের সামনে থেকে বল বারের ওপর দিয়ে উড়িয়ে মারেন তিনি।

এরপর ১৩ মিনিটে লিড নেওয়ার ভালো একটি সুযোগ এসেছিল কোস্টারিকার সামনে। ডান দিক থেকে দারুণ একটি পাস দিয়েছিলেন বোর্গেস। কিন্তু বক্সের ভেতর থেকে বল পোস্টের বাইরে দিয়ে মারেন গাম্বোয়া।

আরাব আক্রমণ ২৬ মিনিটে মার্সেলোর নিচু পাস নিয়ন্ত্রণে নিয়ে বল জালে জড়িয়ে দিয়েছিলেন গ্যাব্রিয়েল জেসুস। কিন্তু অফ সাইডের কারণে গোলটা বাতিল করেন রেফারি।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই চেলসির উইঙ্গার উইলিয়ানের বদলি হিসেবে জুভেন্টাসের মিডফিল্ডার ডগলাস কস্তাকে মাঠে নামিয়েছেন ব্রাজিলের কোচ তিতে। ৪৮ মিনিটে ফাগনারের ক্রস থেকে জোরালো হেড নিয়েছিলেন জেসুস। কিন্তু বল বারে লেগে ফিরলে হতাশ হতে হয় ব্রাজিল সমর্থকদের। ৫৬ মিনিটে পাওলিনহোর নিচু ক্রসে বক্সের সামনে থেকে শট নিয়েছিলেন নেইমার। তবে কর্নারের বিনিময়ে কোস্টারিকাকে রক্ষা করেন গোলরক্ষক নাভাস।

৭২ মিনিটে ভালো একটি সুযোগ এসেছিল ব্রাজিলের সামনে। গাম্বোয়ার ভুলে বক্সের সামনে বল পেয়েছিলেন নেইমার। ২০ গজ দূর থেকে দারুণ একটি বাঁকানো শটও নিয়েছিলেন পিএসজি ফরোয়ার্ড। কিন্তু পোস্ট ঘেঁষে চলে যায় বলটি।
এরপর ৭৯ মিনিটে গঞ্জালেজের সঙ্গে বল দখলের লড়াইয়ে নেইমার বক্সের ভেতরে পড়ে গেলে পেনাল্টি দিয়েছিলেন রেফারি। কোস্টারিকার খেলোয়াড়দের আবেদনে সিদ্ধান্ত যায় ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি (ভিএআর) প্রযুক্তির কাছে। ভিডিও দেখে পেনাল্টির সিদ্ধান্ত বাতিল করেন রেফারি। ফাউল ছিল না বলে নেইমারকে হলুদ কার্ড দেখানো হয়।

আরও পড়ুন

%d bloggers like this: