শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৪:০৮ অপরাহ্ন

অনলাইন ডেস্ক:

ভারতের বিহারের দ্বারভাঙা জেলার এক মুসলিম যুবক দুই দিনের নবজাতককে বাঁচাতে রোজা ভেঙে রক্ত দিলেন। দুদিন আগে রমেশকুমারের স্ত্রী আরতি দ্বারভাঙার একটি নার্সিংহোমে ভর্তি হোন। সেখানেই একটি পুত্র সন্তানের জন্ম দেন তিনি। কিন্তু জন্মের পর নবজাতকের শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে। চিকিৎসকরা জানান, নবজাতককে বাঁচাতে রক্ত লাগবে। রক্তের গ্রুপ ‘ও নেগেটিভ’। কিন্তু পরিবারের কোনো সদস্যের ‘ও নেগেটিভ’ রক্ত নেই।

উপায় না দেখে রক্তের জন্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমকে বেছে নিলেন নবজাতকের পরিবার। ফেসবুক আর ওয়াটসঅ্যাপের বিভিন্ন গ্রুপে বিষয়টি জানিয়ে ‘ও নেগেটিভ’ রক্তের জন্য আবেদন করেন।

বিহারের দ্বারভাঙার বাসিন্দা মোহম্মদ আশফাক। তার রক্তের গ্রুপ ‘ও নেগেটিভ’। ২৮ মে সোমবার ফেসবুকে বার্তাটি দেখতে পান তিনি। সঙ্গে সঙ্গে নবজাতকের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করেন আশফাক।
আশফাক দেরি না করে নবজাতককে রক্ত দিতে নার্সিংহোমে চলে যান। কিন্তু আশফাক রোজা রাখার কারণে চিকিৎসক তার রক্ত নিতে পারবেন না বলে জানান। কারণ হিসেবে চিকিৎসক জানান, রোজা থাকা অবস্থায় রক্ত দিলে আশফাক নিজেই অসুস্থ হয়ে যেতে পারেন। আশফাক কোনো উপায় না দেখে বাধ্য হয়ে রোজা ভাঙার সিদ্ধান্ত নিলেন। রোজা ভেঙে খাবার খেয়ে রক্ত দেন তিনি। আর সেই রক্তেই বেঁচে যায় নবজাতকটি। আশফাক বলেন, ‘এই রোজাটি পরে অন্য সময় রাখা যাবে।’

নবজাতকটির পরিবার জানায়, ধর্মের নামে ঘৃণার পরিবেশ তৈরি করেন যারা, তারা আশফাকের কাছ থেকে শিক্ষা নিতে পারেন।

সূত্র: খালিজ টাইমস/আনন্দবাজার

আরও পড়ুন

%d bloggers like this: