1. jagocomilla24@gmail.com : jago comilla :
  2. weekybibarton@gmail.com : Amit Mazumder : Amit Mazumder
  3. sufian3500@gmaill.com : sufian Rasel : sufian Rasel
  4. sujhon2011@gmail.com : sujhon :
শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ০৫:৩৬ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজঃ
নেদারল্যান্ডসকে হারিয়ে সুপার এইটের পথ সহজ করল বাংলাদেশ  রাফসান দ্য ছোট ভাই’র বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা কুমিল্লা জিলা স্কুল রোডে প্ল্যানেট এস আরের সামনে শুরু হয়েছে ৪ দিন ব্যাপী ঈদ এক্সিবেশন মেলা দেবিদ্বারের ধামতীতে কার্যালয়ে যেতে পারছেন না চেয়ারম্যান মিঠু, কাজ বন্টনে স্থানীয় আওয়ামী নেতা! ভিক্টোরিয়ার কর্মচারীদের জন্য ক্যাম্পাস বার্তার ঈদ উপহার ইয়ুথ জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের কমিটি ঘোষণা: সভাপতি সেলিম , সেক্রেটারি মহিউদ্দিন ধর্ষণ মামলায় কুমিল্লা থেকে টিকটকার প্রিন্স মামুন গ্রেফতার মেডিকেল সার্টিফিকেটে জখম নেই, বিচার নিয়ে শঙ্কায় সাবেক পুলিশ সদস্য  ভারতের সাথে সহজ জয় হাতছাড়া করল পাকিস্তান; বিদায়ের শঙ্কা! কুমিল্লা সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি নিহত

‘থ্যালাসিমিয়া প্রতিরোধে নিকটআত্মীয়ের মধ্যে বিয়ে করা যাবে না ’

  • প্রকাশ কালঃ মঙ্গলবার, ৮ মে, ২০১৮
  • ১৭৭

(বারী উদ্দিন আহমেদ বাবর, নাঙ্গলকোট)

“বিয়ের আগে পরীক্ষা করলে রক্ত, সন্তান থাকবে থ্যালাসিমিয়া মুক্ত ” এ স্লোগানকে সামনে রেখে কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে বিশ্ব থ্যালাসিমিয়া দিবস পালিত হয়েছে।

এ উপলক্ষে  মঙ্গলবার দুপুরে নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সভা কক্ষে এক সভার আয়োজন করা হয়। সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ দেব দাস দেব, প্রেসক্লাবের সভাপতি ও সাপ্তাহিক সময়ের দর্পণ পত্রিকার সম্পাদক এএফএম শোয়ায়েব, ডা: নিলুফার পারভীন, আনন্দ টিভির নাঙ্গলকোট উপজেলা প্রতিনিধি কামাল হোসেন জনি প্রমুখ।

এতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত ডাক্তার, নার্স, কর্মকর্তা-কর্মচারী সহ এলাকাবাসী উপস্থিত ছিলন। এসময় থ্যালাসিমিয়া রোগ কি, এ রোগ কেন হয় এবং এ রোগ প্রতিরোধে করনীয় কি। এনিয়ে একটি শর্ট ডকুমেন্টারি প্রদর্শনী দেখানো হয়।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ দেব দাস দেব তার বক্তব্যে বলেন, থ্যালাসিমিয়া প্রতিরোধে করনীয় হলো নিকটতম আত্মীয় স্বজনের সাথে বিয়ে না করা, বিয়ের আগে হিমোগ্লোবিন ইলেকট্রোকোরেসিস পরীক্ষা করে নিশ্চিত হয়ে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হওয়া। তা হলেই কেবল এ রোগ প্রতিরোধ সম্ভব হবে।

তিনি বলেন এ রোগের প্রকোপ শিশুদের মাঝে বেশী। তবে কোন শিশুর এ রোগ হলে ভয়ের কোন কারণ নেই। কেননা এ রোগ ছোঁয়াছে নয়। এটি একটি জেনেটিক রোগ। আমাদের দেশে মাত্র ৭ শতাংশ লোকের মাঝে রোগটি বিদ্যমান রয়েছে। সুতরাং একমাত্র সচেতনতাই পারে এ রোগ প্রতিরোধের প্রধান সহায়ক।

শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুনঃ

© All rights reserved © 2024 Jago Comilla
Theme Customized By BreakingNews