শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১১:০১ পূর্বাহ্ন

অনলাইন ডেস্ক:

তুলির বাম চোখের পাতা ধরে লাফাচ্ছে বেশ কয়েকদিন ধরেই। তীব্র দুশ্চিন্তায় সময় কাটছে তার। কারণ সবাই বলে, বাম চোখ লাফালে নাকি খারাপ কিছু ঘটে। আর চিন্তাটা তা নিয়েই। সারাক্ষণই মনে হচ্ছে এই বুঝি কিছু ঘটবে! মোবাইল ফোন বাজলে বা দরজার কলিং বেল বাজলে বুকটা ধক করে উঠছে, কোনো দুঃসংবাদ আসেনি তো? এরকম অবস্থায় এক বিকেলে গরম চা পড়ে হাত পুড়ে যায় তুলির।

তুলির হাত পুড়ে যাওয়ার ঘটনায় আপনার মধ্যেও কি প্রচলিত কুসংস্কারটি নড়ে উঠল? মনে রাখবেন বাম চোখ লাফালে বিপদ আসে এটা স্রেফ কুসংস্কার। চোখ লাফানো একটি শারীরিক প্রক্রিয়া। তুলির হাতে চা পড়ার ঘটনার সঙ্গে তার অসাবধনতা বা মানসিক অস্থিরতা দায়ী। অথচ এভাবেই একটি ভ্রান্ত ধারণা কখনো কখনো বিশ্বাসে পরিণত হয়ে যেতে পারে।

চোখের পাতা লাফানো এক ধরনের অসুখ। ডাক্তারি ভাষায় একে বলে ‘মায়োকিমিয়া’ (Myokymia)। মূলত পেশীর সংকোচনের কারণেই চোখের পাতা লাফায়। দুই-একবার হঠাৎ চোখের পাতা লাফালে চিন্তার কিছু নেই। কিন্তু সেটা যদি মাত্রাতিরিক্ত হয় এবং তাহলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়া উচিত।

চোখের পাতা লাফানোর কয়েকটি কারণ:

মানসিক চাপ: আমরা যখন কঠিন মানসিক চাপের ভেতর দিয়ে যাই তখন শরীর বিভিন্ন উপায়ে তার প্রতিক্রিয়া দেখায়। চোখের পাতা লাফানো মানসিক চাপের লক্ষণ হিসেবে প্রকাশ পেতে পারে।

ক্লান্তি: পরিমিত ঘুমের অভাব বা অন্য কোন কারণে ক্লান্তি থেকেও চোখের পাতা লাফানো শুরু হতে পারে। ঘুমের অভাবে চোখের পাতা লাফালে পরিমিত ঘুম হলেই সেরে যাবে।

দৃষ্টি সমস্যা: দৃষ্টিগত কোন সমস্যা থাকলে চোখের উপর চাপ পড়তে পারে। টিভি, কম্পিউটার, মোবাইল ফোনের স্ক্রীনের আলোও চোখের দৃষ্টিতে প্রভাব ফেলতে পারে। আর এই সব সমস্যা থেকে চোখের পাতা লাফানো উপসর্গ দেখা দিতে পারে।

ক্যাফিন এবং অ্যালকোহল: অনেক বিশেষজ্ঞ মনে করেন ক্যাফিন এবং অ্যালকোহল অতিরিক্ত সেবনে চোখের পাতা লাফাতে পারে। তাই ক্যাফিন এবং অ্যালকোহলের ব্যবহার মাত্রা কমিয়ে এনে এ সমস্যা থেকে উদ্ধার পাওয়া সম্ভব।

চোখের শুষ্কতা: কম্পিউটার স্ক্রিনের দিকে এক দৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকলে, অতিরিক্ত অ্যালকোহলের প্রভাবে, চোখে কন্ট্যাক্ট ল্যান্স ঠিকমতো না বসলে কিংবা বয়স জনিত কারণে চোখ শুকিয়ে যেতে পারে। চোখের শুষ্কতা চোখের পাতা লাফানোর জন্য দায়ী বলে চক্ষু চিকিৎসকরা মনে করেন।

পুষ্টির ভারসাম্যহীনতা: কিছু কিছু প্রতিবেদনে পুষ্টির ভারসাম্যহীনতাকে চোখের পাতা লাফানোর একটি কারণ হিসেবে দেখানো হয়েছে। বিশেষ করে ম্যাগনেসিয়ামের অভাব জনিত কারণে এমনটি হতে পারে বলে দাবি করা হয়েছে।

এলার্জি: যাদের চোখে এলার্জি আছে, তারা চোখ চুলকায় বা হাত দিয়ে ঘষে; ফলে চোখ থেকে পানির সাথে কিছুটা হিস্টামিনও নির্গত হয়। ধারণা করা হয় হিস্টামিন চোখের পাতা লাফানোর জন্য দায়ী।

চোখের পাতা লাফানোর উপর ভালো বা মন্দ সংবাদের কোনটিই জড়িত না থাকলেও যদি মাত্রাতিরিক্ত চোখের পাতা লাফায় তবে সেটি আপনাকে মন্দ সংবাদই দেবে যে, আপনাকে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে। আর চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ হয়ে উঠলে সেটা অবশ্যই হবে সুসংবাদ। সুস্থ থাকুন।

আরও পড়ুন

%d bloggers like this: