শুক্রবার, ১৯ অগাস্ট ২০২২, ১১:০৭ পূর্বাহ্ন

মাহফুজ নান্টু, কুমিল্লা।

সন্ধ্যা নেমে খানিকটা অন্ধকার। আকাশ থেকে গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টি পড়ছে। নজরুল ইনস্টিটিউটের পাশে গুলবাগিচা প্রাথমিক বিদ্যালয় ঘেঁষা কদম গাছের ফুল গুলো বৃষ্টাস্নাত হয়ে আছে । ধর্ম সাগর পাড়ের নজরুল ইনস্টিটিউট। সেখানে যাত্রীর আয়োজনে নৃত্য আর গানের সুরে স্বাগত জানালো বর্ষা ঋতুকে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার এই আয়োজনে মঞ্চ ছিলেন যাত্রী সাহিত্য-সাংস্কৃতিক সংগঠনের উপদেষ্টা শান্তি রঞ্জণ ভৌমিক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব শাহাজাহান খান, লেখক মোতাহের হোসেন মাহবুব, শিরোনাম পত্রিকার সম্পাদক নীতিশ সাহা, নজরুল গবেষক ড. আলী হোসেন চৌধুরী,সাবেক অধ্যক্ষ সফিকুল ইসলাম, নাট্য ব্যক্তিত্ব শাহজাহান চৌধুরী, ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব বদরুল হুদা জেনু, আবৃত্তিকার অধ্যাপক রতন প্রনয ভৌমিক, ভিক্টোরিয়া সরকারী কলেজের ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ফারুক সরকার নিখিল রঞ্জন রায় সহ অসংখ্য অতিথিবৃন্দ।

সুলতানা পারভীন দীপালির সঞ্চালনায় যাত্রী সদস্যদের কন্ঠে ‘দূর্গম গিরি কান্তার মরু দুস্তর পারবার’ নজরুল সংগীতটি পরিবেশনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় বর্ষাবরণ শুরু হয়। গান পরিবেশন করেন ভিক্টোরিয়া সরকারী কলেজের ইংরেজী বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক জোবাইদা নূর খান। অনুষ্ঠানে সম্মিলিত কন্ঠে গাওয়া হয় বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘বজ্রমানিক দিয়ে গাঁথা, আষাঢ় তোমার মালা’।

যাত্রী সাহিত্য-সাংস্কৃতিক সংগঠনের সদস্যদের একক ও যৌথ পরিবেশনায় নজরুল সংগীত, রবীন্দ্র সংগীত, আধুনিক গান, নৃত্য ও গীতি কবিতা আবৃত্তিতে জমে উঠে আসর।

অনুষ্ঠানের শেষাংশে শুভেচ্ছা বক্তব্যে রাখেন যাত্রী সাহিত্য-সাংস্কৃতিক সংগঠনের উপদেষ্টা শান্তি রঞ্জন ভৌমিক।
তিনি বলেন, ‘প্রতি বছর আমরা বর্ষাকে গান, নৃত্য ও কবিতা আবৃত্তির মাধ্যমে বরণ করে নেই। বর্ষা সাহিত্যের বড় একটি অনুসঙ্গ। যাত্রী সংগঠনের এমন আয়োজন যুগ যুগান্তর বয়ে চলুক’।

আরও পড়ুন

%d bloggers like this: