শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:০২ অপরাহ্ন

মাহফুজ নান্টু, কুমিল্লা।।

মধ্য রাতে আগুনে পুড়লো ১৪ টি দোকান। স্থানীয়রা পানি দিয়ে আগুন নেভাতে ব্যর্থ হয়। ফায়ার সার্ভিসের গাড়ী ঘটনাস্থলে আসার আগে সব পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২ টার দিকে কুমিল্লা নাঙ্গলকোট উপজেলার হেসাখাল বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

নাঙ্গলকোট উপজেলার ৭ নং হেসাখাল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জালাল আহমেদ ভুইয়া জানান, রাত ১২ টার দিকে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। আগুনে বাজারের মুদি, কনফেকশনারী, ঔষধ ও হাসমুরগীর খাদ্যর দোকানসহ অন্তত ১৪ টি দোকান আগুনে ভস্মীভূত হয়।

আগুনে মা ফার্মেসীর সব ঔষধ পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ফার্মেসীর স্বত্বাধিকারী আজিজুল হক মাইন বলেন, রাত সাড়ে ১২ টায় আগুনের খবর পাই। এ ঘটনার একঘন্টা পর ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি আসে। ততক্ষণে চোখের সামনে পুরো দোকানটি পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ঔষধের পাশাপাশি আমি বিকাশের ব্যবসা করতাম।

আগুনে চোখের সামনে নিজের কসমেটিকসের দোকানটি পুড়ে ছাই হয়। ব্যবসায়ী সারোয়ার আলম কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন, আমার সব শেষ হয়ে গেলো। এই ক্ষতি কেমনে কাটিয়ে উঠবো।

নাঙ্গলকোট উপজেলায় কোন ফায়ার সার্ভিস নেই। অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় লাকসাম উপজেলা থেকে ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট এসে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। আর এ কারনেই নাঙ্গলকোটে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটলে ক্ষতির পরিমান বাড়ে।

লাকসাম ফায়ার সার্ভিস এ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের সিনিয়র স্টেশন অফিসার মোঃ শাহাদাৎ হোসেন জানান, ঘটনা শুনে আমরা একটি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হই। তবে প্রাথমিকভাবে ধারনা করছি বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। তবে অধিকতর তদন্তে নিশ্চিত হতে পারবো কি কারনে আগুনের সূত্রপাত ঘটে।

আরও পড়ুন

%d bloggers like this: