সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ১০:২৪ অপরাহ্ন

নিজস্ব প্রতিবেদক:

কুমিল্লার হোমনায় বিয়ে বাড়ির গায়ে হলুদের ডিজে পার্টিতে মেয়েদের নাচের ছবি তোলাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় বড়ঘারমোড়া গ্রাম ও হুজুরকান্দিগ্রামের ১০ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) সকালে হোমনা উপজেলার ঘারমোরা বাজারে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে । বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হোমনা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.আবুল কায়েস আকন্দ ।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার বড় ঘারমোড়া গ্রামের গিয়াস উদ্দিনের মেয়ের গায়ে হলুদ অনুষ্ঠান ছিল । এ সময় কান্দিগ্রামের কয়েক জন ছেলে ডিজি পার্টিতে মেয়েদের নাচের ভিডিও ও ছবি তুলতে থাকে । এ সময় স্থানীয়রা ছবি তুলতে বাঁধা দেয় ও মোবাইলে ধারণ করা ছবি ও ভিডিও ডিলেট করার চেষ্টা করে । এসময় বড়ঘারমোড়া গ্রামের কয়জন ছেলে সাথে তাদের বাকবিতন্ডা ও হাতাহাতি হয় ।

শনিবার ( ১৮ সেপ্টেম্বর) বড়ঘারমোড়া গ্রামের বাসিন্দা সাব মিয়া স্থানীয় বাজারে দুধ বিক্রি করতে যায় । এ সময় গায়ে হলুদের রাতে তাদের হেনস্থা করায় কয়েকজন ছেলে সাব মিয়ার দুধ মাথায় ঢেলে দেয়। এ সময় তাকে মারধর ও অপমান করা হয় । এই ঘটনায় সাব মিয়ার ভাই জাহাঙ্গীর আলম বাদী হয়ে হুজুরকান্দি গ্রামের ১৫ জনকে আসামি করে থানায় একটি মামলা করেন। এ ঘটনায় পুলিশ একজনকে গ্রেফতার করে ।

ঘারমোড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান মোল্লা জানান, বৃহস্পতিবার গায়ে হলুদ অনুষ্ঠানে হাতাহাতি হয়, শনিবার সাব মিয়াকে মারধরের ঘটনায় মামলা ও গ্রেফতারের ঘটনা ঘটে । তার পর থেকে দুই গ্রামের বাসিন্দাদের মধ্যে উত্তেজন ছড়িয়ে পড়ে । বিষয়টি নিয়ে আজ দুই এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে বসে সমাধানের হওয়ার কথা ছিল । তার আগেই সকালে হুজুর কান্দি ও বড় ঘারমোড়া গ্রামের বাসিন্দারা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে । স্থানীয়রা তাদের ঝগড়া নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করেছিল । পরিস্থিতি ভয়াবহ হওয়ায় থানায় খবর দিলে পুলিশ এসে নিয়ন্ত্রণ করে।

হোমনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো.আবুল কায়েস আকন্দ জানান, বড় ঘাড়মোড়ায় গ্রামে গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে মেয়েদের নাচের ছবি তোলাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে বিরোধ শুরু হয় । পরবর্তী এ ঘটনায় জের ধরে শনিবারও সাব মিয়ার উপর হামলা করা হয় । এ কয়েকটি ঘটনার জের ধরেই দুই গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষের ঘটনায় এখনও কোন পক্ষ থানায় অভিযোগ দায়ের করেনি । বর্তমানে ঘারমোড়া বাজারে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

আরও পড়ুন

%d bloggers like this: