মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৩, ১২:৫২ পূর্বাহ্ন

(জাগো কুমিল্লা.কম)
কুমিল্লা ফের পুলিশের সাথে মাদক ব্যবসায়ীর বন্দুক যুদ্ধের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী নুরুল ইসলাম ইছা (৩৫) রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করে  কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ মর্গে  আনা হয়েছে।  বন্দুকযুদ্ধে দুই দিনে কুমিল্লায় তিন মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২ টার দিকে আদর্শ সদর উপজেলার টিক্কার চর ব্রিজ সংলগ্ন গোমতী বাঁধ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত ইছা একই উপজেলার গাজীপুর গ্রামের আবদুল জলিলের পুত্র। ওসি কোতয়ালি আবু ছালাম সহ চার পুলিশ আহত, এক বস্তা ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নুরুল ইসলাম ইছা (৩৫) একজন চিহিৃত ও তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী। পুলিশের বিশেষ অভিযানে মঙ্গলবার বিকালে তাকে গ্রেফতার করা হয়। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে তার দেয়া তথ্য অনুসারে ইছার সহযোগীদের আটক এবং মাদক উদ্ধারে পুলিশ অভিযান শুরু করে। গভীর রাতে কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) তানভীর সালেহীন ইমনের নেতৃত্বে কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশের একটি টিম শহরতলীর টিক্কারচর ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় অবস্থান নেয়।

কোতয়ালী মডেল থানার ওসি মোহাম্মদ আবু ছালাম মিয়া মুঠো ফোনে জানান, পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে নুরুল ইসলাম ইছার সহযোগী অপর মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। এ সময় আত্মরক্ষায় পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। উভয় পক্ষের গুলি বিনিময়ে মাদক ব্যবসায়ী ইছা গুরুতর আহত হয়। তাকে উদ্ধারের পর কুমেক হাসপাতালে নেয়া পথে তার মৃত্যু হয়। নিহত ইছার বিরুদ্ধে মাদক আইনে ৭টি মামলা রয়েছে বলেও ওসি জানিয়েছেন।

এদিকে কুমিল্লা জেলাকে মাদকমুক্ত করতে নানা পদক্ষেপ নিয়েছে জেলা পুলিশ। এরই মধ্যে মাঠে সাঁড়াশি অভিযান শুরু করেছে থানা পুলিশ ও জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)। অভিযানের শুরুতেই গত সোমবার দিবাগত মধ্য রাতে কোতয়ালী থানা ও ডিবি পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে শরীফ ও পিয়ার আলী নামে তালিকাভূক্ত শীর্ষ ২ মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে। একই রাতে জেলার দেবিদ্বার উপজেলার জাফরাবাদ এলাকায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে সাদ্দাম হোসেন (২৬) নামে এক মাদক ব্যবসায়ী গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয়েছে।

আরও পড়ুন

%d bloggers like this: