মঙ্গলবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২৩, ০৩:৪৫ পূর্বাহ্ন

(বারী উদ্দিন আহমেদ বাবর, নাঙ্গলকোর্ট )

কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার ঢালুয়া ইউপির একটি গ্রামে পেয়ারার লোভ দেখিয়ে ৭ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার বিকেলে ওই গ্রামের একটি ঘরে শিশুটিকে ধর্ষনের চেষ্ঠা চালানো হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার সাংবাদিকদের এ বিষয়ে বিস্তারিত জানিয়েছে শিশুটির মা।

জানা যায়, শিশুটির পিতা একজন ট্রাকের হেলপার হিসেবে কাজ করেন। তার মেয়েটি স্থানীয় একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ২য় শ্রেণীতে পড়ে। তাদের পাশের বাড়ীর সৌদি আরব প্রবাসী কামাল হোসেনের ছেলে সাগর শিশুকে বুধবার (১৮ জুলাই) বিকেলে পেয়ারা দেয়ার লোভ দেখিয়ে বাড়ীতে নিয়ে যায়। বাড়ীতে নিয়ে শিশুটিকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়।

এসময় শিশুটি চিৎকার করলে লোকজন আসলে শিশুটিকে ছেড়ে দিয়ে পালিয়ে যায় সাগর। এরপর ওই শিশু বাড়ীতে ফিরে এসে তার মাকে ঘটনাটি খুলে বলে। তার মা গ্রামবাসীকে বিষয়টি জানিয়েছেন বলে দাবী করেন। তিনি আরো বলেন, গ্রামের মাতব্বররা বললে আমরা মামলা দায়ের করবো।

এদিকে, সাগর তার মা ও চাচা রানার দাবী পারিবারিক পূর্ব বিরোধ থেকে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে সামাজিকভাবে হেয় করার চেষ্ঠা করছে প্রতিপক্ষের লোকজন।

এলাকাবাসী জানায়, সাগর একজন বখাটে। এরআগে একই গ্রামের এক দরিদ্র মেয়েকে ধর্ষণ করে সে। এরপর এলাকার প্রভাবশালী মহল ৩ লাখ টাকার বিনিময়ে ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়। এ ঘটনাটিও স্থানীয় ইউপি মেম্বার মনির হোসেনের মাধ্যমে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা চলছে বলে জানায় এলাকাবাসী ।

এ বিষয়ে নাঙ্গলকোট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম জানান, ঘটনাটি আপনার কাছে শুনেছি খোঁজ নিয়ে দেখবো।

আরও পড়ুন

%d bloggers like this: