মঙ্গলবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৩, ১১:৪৩ পূর্বাহ্ন

(আক্কাস আল মাহমুদ হৃদয়, বুড়িচং)
কুমিল্লা জেলার বুড়িচং উপজেলার আনন্দপুর এলাকায় আশ্রয়ন প্রকল্পের তরুনীকে তিনজন মিলে গণধর্ষনে ৫ মাসের অন্তঃসত্ত¦ার অভিযোগে ২ জন আটক করেছে বুড়িচং থানার পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জেলার বুড়িচং উপজেলার বাকশীমূল ইউনিয়নের আনন্দপুর সীমান্তবর্তী এলাকায় আশ্রয় প্রকল্পের সুরুজ মিয়ার মেয়ে লিমা আক্তার (১২) (ছদ্ম নাম) কে একই এলাকার সহিদ মিয়ার ছেলে শরিফুল ইসলাম (২৮), হামিদ মিয়ার ছেলে মো: জামান (২৭) ও আলী আশ্রাফের ছেলে হারিজ মিয়া (৩২) এর কর্তৃক প্রায় ৫ মাস আগে ধর্ষন হয়।

ধর্ষনে অন্তঃসত্তা হওয়ার খবরটি ধর্ষিতার পরিবার জেনে যায়। পরে এলাকায় জানা যানি হয়ে গেলে কিছু অসাধু লোকের মাধ্যমে ১ লক্ষ টাকার বিনিময়ে সমাধান করার চেষ্টা চলে। এতে ওই অসাধু লোকেরা টাকা আদায় করতে ব্যর্থ হয়ে যায়। এ বিষয়টি স্থানীয় মেম্বার, চেয়ারম্যানদের অবগত করলে পুলিশকে খবর দিলে ৫ জুন মঙ্গলবার সকালে শরিফুল ইসলাম ও জামান কে আটক করে নিয়ে আসে থানায়।

ধর্ষিতার ভাই এলিম জানান, আমরা বুড়িচং উপজেলার হরিপুর গ্রাম থেকে প্রায় ২০/২২ বছর আগে জায়গা সম্পত্তি না থাকাতে আমরা আনন্দপুর আশ্রয়ন প্রকল্পে এসে আশ্রয় নেই। ৩ ভাইয়ের মধ্যে ১ বোন হল লিমা আক্তার অভাব অনটনের কারণে স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত লেখাপড়া করার পর তাকে আর পড়াতে পারিনি। ধর্ষনের বিষয়টি আমাদের পরিবার এবং বাজার দোকানপাটে আলোচনা হওয়ার পর ডাক্তারের কাছে নেওয়ার পর নিশ্চিত হয়েছি।

ধর্ষনের সাথে জড়িত কে বা কারা লিমা আক্তারকে প্রশ্ন করলে তাদের কথা বলেন। তারা বিভিন্ন কৌশল প্রয়োগ করে আমার বোনকে ধর্ষন করেছে। এই বিষয়টি ২/৩ দিন ধরে টাকার বিনিময়ে সমাধান হওয়ার চেষ্টা চলছিল। কে জানি পুলিশ কে খবর দিলে পুলিশ ২ জনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। একজন পলাতক রয়েছে। আমরা গরীব মানুষ রিক্সা চালিয়ে দিনে এনে দিনে খাই। আমরা প্রশাসনের কাছে সুষ্ঠু বিচার চাই।

এই বিষয়ে বুড়িচং থানার ওসি মনোজ কুমার দে নিশ্চিত করে বলেন, আমরা অন্তঃসত্তা অভিযোগে ২ জনকে আটক করেছি এবং আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন চলছে। ( ফাইল ফটো)

আরও পড়ুন

%d bloggers like this: