শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৯:২০ পূর্বাহ্ন

( জাগো কুমিল্লা.কম)
কুমিল্লা বুড়িচংয়ে সংবাদ প্রকাশের জেরে প্রকাশ্যে সাংবাদিক মাহফুজ বাবু কে লাঠি দিয়ে পেঠালো সন্ত্রাসীরা। সে কুমিল্লার স্থানীয় ও জাতীয় সংবাদ মাধ্যমে কর্মরত রয়েছেন। সে বর্তমানে কুমিল্লা আদর্শ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

রবিবার সকাল ৯ টায় নাজিরা বাজার আলম মেডিকেল হলের সামনে হামলা করে মাহসড়কের চাঁদাবাজকারী গোলাম আব্বাস (গনি) সহ আরো তিন চারজন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সাংবাদিক বাবুকে মারধরের শুরু করলে পালিয়ে বাঁচার চেষ্টার করে। দৌঁড় দেওয়া সময়র ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের একটি ট্রাকের চাপায় পিষ্ট হওয়া থেকে অল্পের জন্য বেঁচে যায়।

গত কয়েক দিন আগে ‘‘মহাসড়কের কুমিল্লা অংশে প্রকাশ্যে চাঁদাবাজি; বিক্ষোভ; সাংবাদিককে হুমকি’’ এ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ ও জাগো কুমিল্লার ফেসবুক পেইজে লাইভ করা হয়। উক্ত সংবাদের জেরে তার উপর হামলা করে সন্ত্রাসীরা। এ বিষয়ে তিনি থানা অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে জানা যায়।

এ বিষয়ে আহত সাংবাদিক মাহফুজ বাবু বলেন, আমাকে প্রাণে মেরে ফেলার উদ্দেশ্য হামলা চালায় গনি তার ছেলে ইকবাল সহ আরো তিন চার জন। এসময় আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে দৌড়ে রাস্তার অপর প্রান্তে পুলিশ ফাড়িতে আশ্রয় নিয়ে কোন মতে রক্ষা পাই। বেহুশের মত দৌড়াতে গিয়ে ট্রাক চাপায় অল্পের জন্য বাঁচলাম। নাজিরা বাজার ফাঁড়ী পুলিশের সহায়তায় উদ্ধার হয়ে বর্তমানে কুমিল্লা সদর হাসপাতালের ১৩নং বেডে ভর্তি আছি। তবে আতংকে আছি পরিবারের জন্য। বাড়িঘর জ্বালিয়ে দেবে বলে হুমকি দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। যে কোন মুহুর্তে গুম বা খুন ও করবে বলে রাস্তায় দাড়িয়ে শতশত মানুষের সামনে চিৎকার করে বলেছে সন্ত্রাসী গনি মিয়া । যে হামলা করেছে সে কুমিল্লার বুড়িচং কোতোয়ালি সহ বিভিন্ন থানায় গাড়ী ডাকাতি হত্যা মামলায় ৩২ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামী। আমি প্রশাসনের কাছে সুষ্ঠু বিচার চাই।

নিউজ করার ক্ষমতা কই পাইছস কত বড় সাংবাদিক তুই দেখি ” ?একথা বলেই শতশত লোকের সামনে আমার উপর হামলা করে। অল্পের জন্য প্রানে বেচে গেছি। আপনাদের দেয়া ছিলো বলেই। তার ব্যবসা বলতে নিমসার বাজারে কাচাবাজার পরিচালনার অন্তরালে মামুনের ইয়াবার চালান আদান প্রদান করে। আর মহাসড়কে চাঁদাবাজি সহ ঝামেলাপূর্ণ জমি জবর দখল, চাঁদাবাজি, জুয়া সহ কুমিল্লা ক্যান্টনমেন্ট এলাকার আশেপাশের এলাকার ত্রাসেরর রাজত্ব কায়েম করে রেখেছে এই গনি মিয়া।

এ বিষয়ে হামলাকারী গোলাম আব্বাস গনি বলেন, আমি তাকে মেরেছি, কেন মেরিছি তা আমি আপনাকে বলতে পারবো না। একজন সাংবাদিকের গায়ে হাত তোলার দায়িত্ব কে দিলো, এমন প্রশ্নের জবাব উল্টো প্রতিবেদককে হুমকি দিয়ে বাড়ির ঠিকানা জানতে চান এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে কলও দেওয়ার হবে প্রতিবেদককে তিনি জানান।

এ বিষয়ে নাজিরবাজার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মাহমুদ হাসান রুবেল বলেন, সাংবাদিক মাহফুজ বাবু আহত অবস্থায় আমাদের ফাঁড়িতে আসার পর আমি তাকে হাসপাতালে প্রেরণ করছি। যেহেতু ঘটনাটি বুড়িচং থানায় হয়েছে। তবে আমরা তাদের আইনী সহযোগিতা করছি।

বুড়িচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনোজ কুমার দে জানান, হামলাকারী গনি মিয়া গ্রেফতারের জন্য অভিযান চলছে। ইতিমধ্যে সংশ্লিষ্ট ফাঁড়িতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে কুমিল্লা জেলা আইনশৃঙ্গলা সভায় সাংবাদিকের উপর হামলার বিষয়েটি উত্থাপন করে কুমিল্লার আদর্শ সদর উপজেলার চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম। তিনি বলেন, সাংবাদিকরা প্রকৃত তথ্য তুলে ধরলে তাদের উপর হামলা করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে কুমিল্লা পুলিশ সুপার মো: শাহ আবিদ হোসেন বলেন, বিষটি আমরা দেখছি। তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

আরও পড়ুন

%d bloggers like this: