শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৭:৫৭ অপরাহ্ন

( জাগো কুমিল্লা.কম)

কুমিল্লায় পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় আটক মাদক ব্যবসায়ী সোহাগ ওরফে কারফু সোহাগ (৩২) মারা গেছেন। শুক্রবার সকাল ৯টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় সে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানার ওসি আবু সালাম মিয়া জানান, ১ জুন শুক্রবার দিবাগত রাতে কুমিল্লার চকবাজার ফাঁড়ি পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধের পর গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে কুমেক হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়। শুক্রবার সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢামেকে মারা যায় সোহাগ।

নগরীর চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী সোহাগ ওরফে কারফু সোহাগ দক্ষিণ চর্থা থিরা পুকুরপাড় এলাকার মানছু মিয়ার পুত্র। তার বিরুদ্ধে ছিনতাই, ডাকাতি, চাঁদাবাজিসহ ৭টি মামলা রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

উল্লেখ্য, ১ জুন শুক্রবার দিবাগত রাত সোয়া ১২টায় জেলার সদর উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের ‘ময়লার খিল’ এলাকায় মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে চকবাজার ফাঁড়ি পুলিশের বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। পরে ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করা হয় মাদক ব্যবসায়ী কারফু সোহাগকে। এসময় তিন পুলিশ সদস্য আহত হন ।

পুলিশ জানায়, শুক্রবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কুমিল্লার চকবাজার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ সালাউদ্দিন আহমেদের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল সদর উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের ‘ময়লার খিল’ এলাকায় অভিযান চালায়। উপস্থিতি টের পেয়ে সংঘবদ্ধ মাদক কারবারি পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়তে থাকে। পুলিশও চালায় পাল্টা গুলি। পরে ঘটনাস্থল থেকে ডান পায়ে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় নগরীর চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ও ৭ মামলার আসামি সোহাগকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসে পুলিশ।

পরদিন তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার সকালে মারা যান সোহাগ।-পরিবর্তন

আরও পড়ুন

%d bloggers like this: