শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৫:০৬ অপরাহ্ন

( জাগো কুমিল্লা.কম)
কুমিল্লা জেলাকে মাদকমুক্ত করতে নানা পদক্ষেপ নিয়েছে জেলা পুলিশ। এরই মধ্যে মাঠে সাঁড়াশি অভিযান শুরু করেছে থানা পুলিশ ও জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)। অভিযানের শুরুতেই গত সোমবার দিবাগত মধ্য রাতে কোতয়ালী থানা ও ডিবি পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে শরীফ ও পিয়ার আলী নামে তালিকাভূক্ত শীর্ষ ২ মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে।

একই রাতে জেলার দেবিদ্বার উপজেলার জাফরাবাদ এলাকায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে সাদ্দাম হোসেন (২৬) নামে এক মাদক ব্যবসায়ী গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয়েছে। এদিকে জেলায় মাদক ব্যবসা প্রতিরোধসহ এ নিয়ে সামাজিকভাবে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে ৩ গ্রুপে ৬ষ্ঠ থেকে স্নাতক-স্নাতকোত্তর শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের মাঝে ‘ইসলামের দৃষ্টিতে মাদক ও জঙ্গিবাদ’ বিষয়ক রচনা প্রতিযোগিতাসহ নানা পদক্ষেপের কথা জানিয়েছেন কুমিল্লা পুলিশ সুপার মো: শাহ আবিদ হোসেন।

মঙ্গলবার বিকালে তিনি দৈনিক কুমিল্লা কন্ঠকে বলেন, সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘দেশ থেকে জঙ্গিবাদ নির্র্মুলে পুলিশ বেশ সফলতা দেখিয়েছে, মাদক নির্মুলেও পুলিশ সফল হবে।’ এছাড়াও প্রধানমন্ত্রী মাদকমুক্ত দেশ গড়তে আইনপ্রয়োগকারী সংস্থা সমূহকে নানা নির্দেশনা দিয়েছেন। পুলিশ সুপার বলেন, প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, আইজিপি মহোদয় দেশ থেকে মাদক নির্মুল করার পাশাপাশি মাদক প্রতিরোধে সামাজিকভাবে সচেতনতা সৃষ্টির জন্য নির্দেশ দিয়েছেন।

তিনি বলেন, রমযান মাসে কুমিল্লায় শিক্ষার্থীদের মাঝে মাদক প্রতিরোধে সচেতনতা সৃষ্টির জন্য ‘ইসলামের দৃষ্টিতে মাদক ও জঙ্গিবাদ’ বিষয়ক রচনা এবং ৩য় অন্ত:জেলা পুলিশ সুপার হামদ/না’ত ক্বিরাত আযান প্রতিযোগিতারও আয়োজন করা হয়েছে। এসব অনুষ্ঠানে ধর্মীয় মূল্যবোধের মাধ্যমে ইসলামের দৃষ্টিতে মাদক সেবন কিংবা এর ব্যবসার বিষয়ে নিরুৎসাহিত করতে আলোকপাত করা হবে।

তিনি বলেন, আমাদের লক্ষ্য একটাই ‘মাদক মুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠা করা।’ কিন্তু পুলিশের একার পক্ষে মাদকমুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠা সম্ভব নয়। এ জন্য সামাজিক সচেতনতার মাধ্যমে মাদক সেবন, বিক্রয় কিংবা সংরক্ষন এসব বিষয়ে সামাজিক বিপ্লব গড়ে তুলতে পারলে মাদকমুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠা করা কঠিন কিছু নয়। পুলিশ সুপার এ জন্য নিজ নিজ অবস্থান থেকে সবাইকে এগিয়ে আসার পাশাপাশি পুলিশকে সহযোগিতার জন্য আহবান জানিয়েছেন।

আরও পড়ুন

%d bloggers like this: