বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১, ১১:০৯ অপরাহ্ন

(শরীফ আহমেদ মজুমদার, কুমিল্লা)

কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার রায়কোট উত্তর ইউপির উওর মাহিনী গ্রামে মাহমুদা আক্তার (১৪) নামের এক কিশোরীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে।

ঘটনার পর থেকে সৎ বাবা ও মা লাপাত্তা রয়েছে। সোমবার (২০ জুলাই) মরদেহ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।রোববার রাত সাড়ে ১০ টায় ওই কিশোরী মাদ্রাসা ছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার করে থানা পুলিশ।

নিহত মাহমুদা আক্তার উর্মি কুকুরিখিল গ্রামের মজিবুল হকের মেয়ে।সে মাহিনী লতিফিয়া এনামিয়া মহিলা মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী। নিহতের নানী জানায়, রোববার বিকেলে উর্মি বিষপান করলে তাকে চৌদ্দগ্রাম সরকারি হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করলে মরদেহ বাড়ীতে নিয়ে আসে।

স্হানীয় সূত্র জানায়, নিহতের পিতা ওমান থাকার সুবাদে ১ বছর পূর্বে নিহতের মা চার সন্তানের জননি হালিমা বেগম একই ইউপির পূর্ব খাড়ঘর গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে ২ সন্তানের জনক সম্পর্কীয় ভাগিনা নূরে আলমের পরকিয়ায় আটক হন। ঘটনাটি জানাজানি হওয়ার পর স্বামী ওমান থেকে দেশে আসার খবরে পরকিয়া প্রেমিকের সাথে পালিয়ে যায়। এ নিয়ে

অনেক বিচার শালিস হয়। পরে গ্রামবাসী ওই নারীর পরিবারকে সমাজচ্যুত করে। নিহতের মা তার সৎ বাবা ও ভাইবোন নানার বাড়ীতে মায়ের সাথে থাকে।

নিহতের বাবা মজিবুল হক অভিযোগ করে বলেন,তার স্ত্রী খারাপ মহিলা আমার জীবনের সব সঞ্চয় শেষ করে আমাকে সর্বশান্ত করে তারা আমার মেয়েকে বিষ খাইয়ে হত্যা করে, আমি মেয়ে হত্যার বিচার চাই। নাঙ্গলকোট থানার ওসি মোঃ বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন,মরদেহ উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। তদন্ত চলমান রয়েছে। রিপোর্ট আসলে মৃত্যুর কারন জানা যাবে।

আরও পড়ুন

বাংলাদেশে কোরোনা

সর্বশেষ (গত ২৪ ঘন্টার রিপোর্ট)
আক্রান্ত
মৃত্যু
সুস্থ
পরীক্ষা
সর্বমোট
%d bloggers like this: