মঙ্গলবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০১:১৬ পূর্বাহ্ন

days 27 hours 22 minutes 44 seconds 52

অনলাইন ডেস্ক:

কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার পাটোয়ার গ্রামের মরহুম মুন্সী আমান উল্লাহ সাহেবের মেজো ছেলে ও মাওঃ আবদুল কাদের সাহেবের ভাই “মাওলানা আবদুল বারী সাহেব” নিজ গ্রামের মসজিদে এশার নামাজের ইমামতি করা অবস্থায় ই’ন্তেকাল (ই’ন্নালিল্লাহ —-রাজিউন) করেছেন।

সোমবার (২৭ জানুয়ারী)  রাত সাড়ে ৭ টায় তিনি ইন্তেকাল করেছেন।মৃ’ত্যুকালে তিনি ২ছেলে ১ মেয়ে ও অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।মঙ্গলবার বেলা ১১ টার সময় তার নিজ বাড়িতে জানাযার নামাজ অনুষ্ঠিত হবে।


দেবিদ্বারে ভয়াবহ আগুনে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

অনলাইন ডেস্ক:
এবিএম আাতিকুর রহমান বাশার: কুমিল্লার দেবীদ্বার পৌর এলাকার গুনাইঘর (পূর্বপাড়া) গ্রামের জসিম উদ্দিনের বাড়িতে এক ভয়াহব অগ্নিকান্ড নিঃস্ব করল ৩ পরিবার। রোববার দিবাগত রাত অনুমান ৩টায় বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত ঘটে বলে নিঃস্ব হওয়া পরিবারে পক্ষ থেকে জানানো হয়। সর্বস্ব হারিয়ে পরিবারগুলো এখন বাকরুদ্ধ। ভোক্তভূগী পরিবার গুলোর মধ্যে বাড়ির মালিক রিক্সা চালক জসীম উদ্দিন(৪৫), ভাড়াটিয়া সেলুন দোকান ব্যবসায়ি সুমন রায়(৪০), রাজ মিস্ত্রী সাইফুল ইনলাম(৩৮)।

বাড়ির মালিক মোঃ জসিম উদ্দিন বলেন, আগুনের তাপে ঘূম থেকে জেগে দেখি পুরো বাড়িতে আগুনের লেলিহান শিখা। আমার সূর চিৎকারে বাড়ির লোকজন কোনরকমে প্রাণ নিয়ে ঘর থেকে বের হ–তে পারলেও পরিহিত বস্ত্র ছাড়া আর কিছু উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

আমার স্ত্রী রুবী আক্তার পুড়ে যাওয়া ৩টি গরুর মধ্যে ২টি গরু বের করতে পারলেও অপর একটি গরু শেকলে বাঁধা থাকায় উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। গরু ৩টির ২টি ছিল গর্ভবতী। তাক্ষনিক ভাবে স্থানীয় লোকজন ছুটে এসে আগুন নিভানোর চেষ্টা করে। সংবাদ পেয়ে মুরাদনগর ফায়ার সার্ভিসের সাব অফিসার আব্দুর রব’র নেতৃত্বে ৬সদস্যের একটি দল এসে প্রায় ঘন্টাব্যাপী চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে। এরই মধ্যে সর্বস্ব পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

ফায়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে প্রাথমিকভাবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমান আনুমানিক সাড়ে ৩লক্ষ টাকার হবে জানানো হলেও, ভোক্তভূগী পরিবারের কর্তা জসীম উদ্দিন জানান, তার মেয়ের জামাই মালয়েশিয়া প্রবাসী শীপন আহমেদ জমি কেনার জন্য দু’লক্ষ টাকা নিয়ে গতকালই তার বাড়িতে এসেছিল। ওই টাকা সহ ৩টি গরু, ভাড়াটিয়াদের আসবাব সামগ্রীসহ ১টি ফ্রীজ, ১টি ষ্টিলের আলমিরা, ৩টি কাঠের আলমিরা, ৫টি খাট, ২টি সেলাই মেসিন, ১টি কাঠের সুকেস, ড্রামে থাকা ১৫মন চাউল, ল্যাপ, কাঁথা, কম্বল ও ৩টি চৌচালা ঘর সহ অন্যান্য মালামাল প্রায় ২০লক্ষাধিক টাকার ক্ষয় ক্ষতি হয়ে নিঃস্ব হয়েছেন।

সংবাদ পেয়ে দেবীদ্বার থানার একদল পুলিশ সহ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাকিব হাসান, উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান এডভোকেট নাজমা বেগম, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি কুমিল্লা জেলা সভাপতি এ,বি,এম আতিকুর রহমান বাশার সহ অনেকেই ছুটে যান। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তার তহবিল থেকে তাৎক্ষনিক ১০হাজার টাকা এবং স্থানীয় ও দেখতে আসা লোকজন নগত টাকা, বস্ত্র, চাউল, সুকনা খাবার সহ নানা সামগ্রী দিয়ে সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দেন।

আরও পড়ুন